মঙ্গলবার | ১১ই আগস্ট, ২০২০ ইং | ২৭শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ২১শে জিলহজ্জ, ১৪৪১ হিজরী

সিনিয়র প্রতিবেদক

প্রকাশিত :

হবিগঞ্জে ২৭টি প্রাইভেট হাসপাতাল চলছে অবৈধভাবে!

সিনিয়র প্রতিবেদক
প্রকাশিত :

স্বাস্থ্যখাতের অব্যবস্থাপনা নিয়ে সারাদেশ এখন তুলপাড়। একের পর এক বেরিয়ে আসছে স্বাস্থ্য খাতের অনিয়ম, দূর্নীতি আর অব্যবস্থাপনা। এর থেকে পিছিয়ে নেই হবিগঞ্জও। নানা অনিয়ম আর অব্যবস্থাপনার মধ্য দিয়ে চলছে হবিগঞ্জের সরকারি-বেসরকারি চিকিৎসা ব্যবস্থা।

নিয়ম-নীতি না মেনেই জেলায় ব্যংঙ্গের ছাতার মতো যত্র-তত্র গড়ে উঠছে প্রাইভেট হাসপাতাল ও ক্লিনিক। এসব হাসপাতালের অনেকেরই নেই কোন ধরণের কাগজপত্র। মানা হচ্ছে না সরকারি নিয়ম নীতি। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দিলেও সিভিল সার্জন বলছেন শীগগিরই নামা হচ্ছে অভিযানে।

জানা যায়, হবিগঞ্জ জেলায় ৯৭টি প্রাইভেট হাসপাতাল ও ক্লিনিক রয়েছে। এরমধ্যে লাইসেন্সসহ কোন ধরণের কাগজপত্র নেই ২৭টিরই। আর শহরে রয়েছে ৫১টি প্রাইভেট হাসপাতাল ও ক্লিনিক। যারমধ্যে কোন ধরণের কাগজপত্রই নেই ৮টির। বাকিগুলোর মধ্যেও অনেকেরই লাইসেন্স থাকলেও অনলাইন নেই, আর অনলাইন থাকলে নেই পরিবেশ ছাড়পত্র। এভাবে বিভিন্ন অনিয়মের মধ্য দিয়ে চলছে অধিকাংশ প্রাইভেট হাসপাতাল। অনেকগুলোতে নেই দক্ষ জনবল। ফলে বিভিন্ন সমস্যায় পড়তে হচ্ছে সাধারণ রোগীদের। প্রায় সময়ই ঘটছে ভুল চিকিৎসায় মৃত্যুর ঘটনা।

হবিগঞ্জ সিভিল সার্জন অফিসের তথ্য মতে- হবিগঞ্জে লাইসেন্স নেই ২৭টি হাসপাতাল ও ক্লিনিকের। এর মধ্যে বেশ নামি-দামি কয়েকটি হাসপাতালেরও নেই কোন কাগজপত্র। হাসপাতালগুলো হলো- এভারগ্রিন ডায়াগনস্টিক এন্ড কলসালস্টেশন সেন্টার, মুন জেনারেল হাসপাতাল, অক্সিজেন ডায়াগনস্টিক সেন্টার, দ্য নেশনাল ডায়াগনস্টিক সেন্টার, প্রাইম কেয়ার ডায়াগনস্টিক সেন্টার, দি স্কয়ার হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার, খোয়াই হাসপাতাল প্রাইভেট লি., রোকেয়া ডায়াগনস্টিক এন্ড হাসপাতাল, পিপল মেডিকেল সার্ভিস, শায়েস্তাগঞ্জ পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টার, দি পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টার, ডিজি ল্যাব মেডিকেল সার্ভিস, দি শাপলা মেডিকেল সার্ভিস, নিউ মেডিল্যাব হাসপাতাল, জনসেবা ডায়াগনস্টিক সেন্টার এবং চাঁদের আলো ডায়াগনস্টিক সেন্টার। এছাড়া আরও অনেকগুলো প্রাইভেট হাসপাতাল রয়েছে যেগুলোর কোন ধরণের বৈধতা নেই।

অভিযোগ রয়েছে শুধু লাইসেন্স নয়, এসব হাসপাতালে নেই দক্ষ জনবল। যে কারণে চিকিৎসার নামে অনেকগুলো হাসপাতালেই হচ্ছে অপচিকিৎসা। প্রায় সময় অপচিকিৎসায় মৃত্যুর ঘটনাও ঘটছে। এসব ঘটনায় মামলা হলেও হাসপাতাল মালিকদের ক্ষমতার দাপটে ভোক্তভুগিরা পাচ্ছেন না বিচার। আর হাসপাতালগুলোর পরিবেশের অবস্থাতো অবর্ণনিয়।

তবে হাসপাতাল মালিকদের দাবি, বিভিন্ন হয়রাণীর কারণে অনেক হাসপাতাল মালিকই লাইসেন্স করা থেকে দূরে থাকার চেষ্টা করেন। আবার কেউ কেউ দাবি করছেন তাদের লাইসেন্সের জন্য প্রক্রিয়া চলছে বলে।

এ ব্যাপারে হবিগঞ্জ প্রাইভেট হাসপাতাল মালিক সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব মো. রেজাউল মোহিত খান বলেন- ‘লাইসেন্স আনতে বিভিন্ন হয়রাণীর শিকার হতে হয়। তাই লাইসেন্স না এনেই ব্যবসা করার চিন্তা করেন অনেকে। তবে আমরা চাই সবাই লাইসেন্সসহ সরকারি সকল নিয়ম অনুসরণ করে যেন মানুষকে সেবা দেয়ার উদ্দেশ্যে হাসপাতাল পরিচালনা করেন।’

হবিগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. কে এম মুস্তাফিজুর রহমান বলেন- ‘জেলায় ২৭টি প্রাইভেট হাসপাতালের লাইসেন্স নেই। শীঘ্রই এসব অবৈধ্য হাসপাতাল ও ক্লিনিকের বিরুদ্ধে অভিযান চালানো হবে।’

এই বিভাগের আরো নিউজ

সেপ্টেম্বরে এইচএসসি পরীক্ষা!
সিলেটে অপহরণকারী চক্রের চার সদস্য কারাগারে
বাতিল হচ্ছে পিইসি-জেএসসি পরীক্ষা!
হবিগঞ্জ-সিলেট-সুনামগঞ্জের কৃষকরা পাচ্ছেন নগদ টাকা
সিলেটে আরও ৪৪ জনের করোনা শনাক্ত
সুনামগঞ্জে কমছে বন্যার পানি, বাড়ছে ‘নদী ভাঙন’
সুনামগঞ্জে বন্যার পানিতে ডুবে মৃত্যু ২, বিভিন্ন জেলায় ৭
৬৭ যাত্রী নিয়ে লন্ডন থেকে সরাসরি সিলেট আসলো বিমান

আজকের সর্বশেষ সব খবর