হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালের অসঙ্গতি যেন কমছেই না। এবার করোনা সংক্রামণ রোধে স্থাপিত হাত ধোয়ার বেসিংয়ে শিশুদের মল-মুত্র লাগানো কাপড় পরিস্কার করছেন অনেকেই। এমনকি বেসিংয়ের পানি দিয়ে অনেক এম্বুলেন্স চালক গাড়ি ধোয়ার কাজ করছেন। এসব দেখার জন্য একজন দাড়োয়ান নিয়োজিত থাকলেও তিনি নিজের দায়িত্ব পালন না করে জরুরী রুমে রোগীর নাম এন্টি করেন। যদিও এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

জানা যায়, গেল বছরের প্রথম দিকে করোনাভাইরাস সংক্রামণ রোধে হবিগঞ্জ জেলার বিভিন্ন স্থানে হাত ধোয়ার বেসিং স্থাপন করা হয়। এ সময় হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালেও দুটি বেসিং স্থাপন করা হয়। কিন্তু সেখানে হাত ধোয়ার পরিবর্তে বিভিন্ন শিশুদের মল-মুত্র লাগানো কাপড় পরিস্কার করছেন অনেকেই। এমনকি বেসিংয়ের পানি দিয়ে অনেক এম্বুলেন্স চালক গাড়ি ধোয়ার কাজ করছেন।

শনিবার সকালে হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, বেশ কয়েকজন নারী বাচ্চাদের মল-মূত্র ত্যাগ করা কাপড় ধোচ্ছেন বেসিংয়ের মধ্যে। অনেক সময় সেই মল বেসিংয়ের মধ্যে লেগে থাকে। একই বেসিংয়ে ভ্রাম্যমান ব্যবসায়িরা পান ধুচ্ছেন। সেখানে থেকে পানি নিয়ে ধোয়া হচ্ছে এস্বুলেন্স। ফলে প্রায় সময়ই দেখা দিচ্ছে পানির সংঙ্কট।

এদিকে, এসব কাজ তদারকি করার জন্য একজন দাড়োয়ান রয়েছেন। অথচ তিনি তার নিজ দায়িত্ব পালন না করে জরুরী রুমে রোগীর নাম এন্টি করেন।

এ ব্যাপারে হাসপাতালের আরএমও মুমিন উদ্দিন রাসেল বলেন, এমনটা হওয়ার কথা না। তবে খোঁজ-খবর নিয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করব।